৪ঠা অক্টোবর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ১৯শে আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ৭ই রবিউল আউয়াল, ১৪৪৪ হিজরি
www.motherlandnewsbd.com

বর্তমানে রাজশাহী ১ আসনে প্রচার প্রচারণায় এগিয়ে আওয়ামীলীগ, পিছিয়ে ঐক‍্যফ্রন্ট।

আলিফ হোসেন,(তানোর প্রতিনিধি): রাজশাহী-১ (তানোর-গোদাগাড়ী) ভিআইপি এই সংসদীয় আসনে একাদ্বশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ভোটের মাঠে প্রচার-প্রচারণা ও গণসংযোগে এগিয়ে রয়েছে আওয়ামী লীগ বিপরীতে পিছিয়ে পড়েছে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট তথা বিএনপি। এখানে নির্বাচনের দিন যতো ঘনিয়ে আসছে নিজেদের মধ্যে দলীয়কোন্দল ও মতবিরোধের কারণে প্রচার-প্রচারণায় ঐক্যফ্রন্ট ততোই পিছিয়ে পড়ছে।

    জানা গেছে, আওয়ামী লীগের দলীয় প্রার্থী রাজশাহী জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাবেক শিল্প প্রতিমন্ত্রী আলহাজ্ব ওমর ফারুক চৌধূরী তথা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নৌকা প্রতিককে বিজয়ী করতে আওয়ামী লীগ ঐক্যবদ্ধ হয়ে নির্বাচনী মাঠে ঝাঁপিয়ে পড়েছে। ইতিমধ্যে আওয়ামী লীগ ব্যানার-পোস্টার-ফেস্টুন-লিফলেট বিতরণ ও প্রচার-প্রচারণায় নির্বাচনী মাঠের পুরোটা নিয়ন্ত্রণে নিয়ে নৌকার পক্ষে গণজোয়ার সৃষ্টি করেছে। ভোটের মাঠে আওয়ামী লীগের প্রচার-প্রচারণা ও গণসংযোগের জোয়ারে হারিয়ে গেছে ঐক্যফ্রন্ট এসব দেথে মনে হচ্ছে এখানে শুধু আওয়ামী লীগের প্রার্থী রয়েছে। আওয়ামী লীগের এমন প্রচার-প্রচারণা ও গণসংযোগ দেখে তৃণমূলে ঐক্যফ্রন্ট তথা বিএনপির নেতাকর্মীদের মধ্যে চরম হতাশা বিরাজ করছে ভেঙ্গে পড়েছে মনোবল নির্বাচনী লড়াইয়ে শেষ পর্যন্ত ঐক্যফ্রন্টের প্রার্থী নির্বাচনের মাঠে থাকবে কি না সেই শঙ্কায় তৃণমূলের নেতাকর্মীরা শঙ্কিত হয়ে পড়েছে।

চলতি বছরের ১৯ ডিসেম্বর বুধবার তানোরের কলমা ইউপি চেয়ারম্যান ও উপজেলা যুবলীগের সভাপতি লুৎফর হায়দার রশিদ ময়নার উদ্যোগে ঘোড়া বহর নিয়ে নৌকার প্রচারণা করা হয়েছে। এদিন দুপুর থেকে ঘোড়া বহর নিয়ে কলমা ইউপির বিভিন্ন এলাকায় নৌকার পক্ষে প্রচারণা করা হয়েছে। আর ব্যতিক্রম এই প্রচারণা দেখতে গ্রামের রাস্তায় শত শত মানুষের সমাগম ঘটে। এ সময় পথ সভায় বক্তব্য রাখেন তানোর উপজেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহসভাপতি সাদেকুন নবী বাবু চৌধূরী, কলমা ইউপি চেয়ারম্যান ও উপজেলা ডুবলীগের সভাপতি লুৎফর হায়দার রশিদ ময়না, ছাত্রলীগ নেতা মোর্শেদুল মোমেনিন রিয়াদ ও তানভির রেজা প্রমূথ।

অপরদিকে এই দিনে তানোরের মুন্ডুমালা পৌর এলাকায় নৌকার পক্ষে গণসংযোগ, বনার্ঢ্য র‌্যালী ও পথসভা করা হয়েছে। পথসভায় বক্তব্য রাখেন রাজশাহী জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান আসাদ, তানোর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও মুন্ডুমালা পৌর মেয়র গোলাম রাব্বানী, মুন্ডুমালা পৌর আওয়ামী লীগ সভাপতি গোলাম মোস্তফা, সাধারণ সম্পাদক আমিন মন্ডল, সাংগঠনিক সম্পাদক সাইদুর রহমান, জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য শরীফ খান ও উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক জুবায়ের ইসলাম প্রমূখ।

অন্যদিকে নির্বাচনী প্রচার-প্রচারণায় পিছিয়ে পড়ে ঐক্যফ্রন্ট তথা বিএনপি এবার তাদের মহিলা কর্মীদের দিয়ে কৌশলে আওয়ামী লীগের বিরুদ্ধে অপপ্রচার শুরু করেছে। স্থানীয়রা জানান, বিএনপির নারী কর্মীরা গ্রামাঞ্চলের নারী ভোটারদের কাছে গিয়ে বিভিন্ন কৌশলে অপপ্রচার করছে। তারা প্রথমে সাধারণ মানুষের মধ্যে মিশে গিয়ে বিভিন্ন বিষয়ে গল্প-গুজব করছে। এক পর্যায়ে যখন সেখানে কিছু মানুষের উপস্থিতি ঘটছে তখন তারা সাধারণ মানুষকে বলছে বেগম খালেদা জিয়ার স্বামী জিয়াউর রহমান অনেক আগে মারা গেছে, মারা গেছে পুত্র কোকো ও অপরপুত্র তারেক জিয়া দীর্ঘদিন ধরে বিদেশ রয়েছে এছাড়াও খালেদা জিয়ার অনেক বয়স হয়েছে তিনি একাকীত্ত্ব রয়েছেন, অথচ সরকার মিথ্যা মামলা দিয়ে তাকে অন্যায় ভাবে কারাগারে রেখেছেন তাই খালেদা জিয়াকে মুক্ত করতে যেকোনো মূল্য আওয়ামী লীগকে ঠেকাতে হবে নইলে আওয়ামী লীগ বিজয়ী হলে তারা খালেদা জিয়াকে ফাঁসি দিবে।

তারা আরো অপ্রপ্রচার করছে এই বলে যে আওয়ামী লীগ ফের সরকার গঠন করলে ইসলামের সৈনিক মাওলানা দেলোয়ার হোসেন সাঈদীর ফাঁসি দিবে, যেভাবে তারা যুদ্ধাপরাধীর অভিযোগে অনেক আলেম মানুষকে ফাসিতে ঝুলিয়েছে। এছাড়াও আওয়ামী লীগ সরকার গঠন করলে এলাকার কোনো রাস্তা-ঘাটের উন্নয়ন হবে না এমনকি দেশ ভারতের অঙ্গরাজ্য পরিণত হবে। এছাড়াও বিএনপির নেতাকর্মীরা সহানুভুতি পেতে নিজেরাই নিজেদের পোস্টার-ফেস্টুন-ব্যানার ছিঁড়ে এলাকায় প্রচার করছে আওয়ামী লীগ এসব করছে যেটা সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন ও উদ্দেশ্যেপ্রণোদিত। কারণ ভোটের মাঠ পুরোপুরি আওয়ামী লীগের নিয়ন্ত্রণে বিএনপি যেখানে কর্মী সংকটের কারণে নির্বাচনী এলাকজুড়ে ব্যানার-পোস্টার-ফেস্টুন সাঁটাতেই পারেনি সেখানে আওয়ামী লীগের মাথায় কি শিং উঠেছে তারা বিএনপির পোস্টার-ব্যানার ছিঁড়বে।

বিএনপির পোস্টার ব্যানার-ফেস্টুন এমনিতেই এলাকায় নাই দলীকোন্দলের কারণে এক গ্রুপ এসব সাঁটালে অপর গ্রুপ ছিড়ে অপসারণ করছে। তবে আশার কথা হলো বিএনপির এসব অপপ্রচার- ন্ট্যান্ডবাজী, অগ্নিসন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ সৃষ্টিকারীদের কথা সাধারণ মানুষ আর বিশ্বাস করছে না। চলতি বছরের ১৯ ডিসেম্বর বুধবার তানোরের কলমা ইউপি এলাকায় বিএনপির এসব নারী কর্মীরা এমন অপপ্রচার করতে গিয়ে সাধারণ মানুষের তোপের মূখে পড়ে দ্রুত এলাকা ছেড়ে পালিয়েছে। এলাকার সাধারণ মানুষ এসব অপপ্রচারকারীদের গ্রেফতার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তিও দাবি করেছেন বলে একাধিক সূত্র নিশ্চিত করেছে।

এদিকে সাধারণ মানুষের অভিমত, আওয়ামী লীগ সরকারের যে উন্নয়ন ও অর্জন তাতে আবারো আওয়ামী লীগ সরকার গঠন করবে এটা প্রায় নিশ্চিত। তাহলে আওয়ামী লীগ দলীয় প্রার্থীকে ভোট না দিয়ে বিরোধী দলীয় প্রার্থীকে ভোট দিয়ে বিজয়ী করে সাধারণ মানুষের কি লাভ। তাই এলাকার উন্নয়নের সঙ্গে সম্পৃক্ত থাকতে সরকার দলীয় জনপ্রতিনিধি নির্বাচিত করা ব্যতিত কোনো বিকল্প নাই। আর সাধারণ মানুষের মধ্যে এই বোধদয় সৃষ্টি হওয়ায় আওয়ামী লীগের রাজনীতিতে রীতিমত গণজোয়ার সৃষ্টি হয়েছে। তাদের অভিমত এবারের নির্বাচনেও আওয়ামী লীগ দলীয় প্রার্থী ফারুক চৌধূরী নৌকা প্রতিক নিয়ে বিপুল ভোটের ব্যবধানে বিজয়ী হবেন। এসব বিবেচনায় প্রতিনিয়ত আওয়ামী লীগের প্রতি সাধারণ মানুষের সমর্থন বাড়ছে।

প্রকাশিত: মাহবুব আলম জুয়েল (সম্পাদক)

Share Button


     এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ