৪ঠা অক্টোবর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ১৯শে আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ৭ই রবিউল আউয়াল, ১৪৪৪ হিজরি
www.motherlandnewsbd.com

রাজন হত্যার বিচার দাবিতে নগরীর শাহ মখদুম থানা ঘেরাও

জামি রহমান, নিজস্ব প্রতিনিধি: রাজশাহী নগরীর আসাম কলোনী এলাকার দোকানী রাজন শেখ (৩০) কে কুপিয়ে হত্যার বিচার দাবিতে পুলিশ কমিশনারের কার্যালয় ঘেরাও করা হয়েছে।
আজ সোমবার (০২ ডিসেম্বর) সকালে এলাকাবাসী এবং নিহত রাজনের স্বজনরা বিক্ষোভ মিছিল নিয়ে গিয়ে পুলিশ কমিশনারের কার্যালয়ে ঢোকার চেষ্টা করেন।
রাজশাহী মহানগর পুলিশের (আরএমপি) কমিশনার হুমায়ুন কবিরের অস্থায়ী কার্যালয় এখন নগরীর শাহমখদুম থানা ভবনে। সকালে বিক্ষোভ মিছিলটি পুলিশ কমিশনারের কার্যালয়ের ভেতর ঢোকার চেষ্টা করলে প্রধান ফটকে পুলিশ আটকে দেয়। এসময় বিক্ষোভকারীরা হত্যাকাণ্ডের বিচার দাবিতে শ্লোগান দেন। পরে পুলিশের পক্ষ থেকে জড়িতদের শাস্তি নিশ্চিতের আশ্বাস দেয়া হলে তারা সেখান থেকেই ফিরে যান।
গত ৩০ নভেম্বর আসাম কলোনী ঈদগাহ মাঠ এলাকায় বন্ধুর ধারালো অস্ত্রের আঘাতে নিহত হন পান-সিগারেটের দোকানী রাজন শেখ। এ ঘটনায় রাজনের বন্ধু সোহেল শেখসহ দুইজনকে আসামি করে থানায় মামলা হয়। এছাড়া অজ্ঞাতনামা আরও দুই-তিনজনকে আসামি করা হয়। ঘটনার পরই পুলিশ এজাহারভুক্ত দুই আসামিকে গ্রেপ্তার করে। আদালতে তাদের সাত দিনের রিমান্ড চাওয়া হয়েছে।
তবে বিক্ষোভকারীরা সোহেল শেখের বাবা আরমান শেখ এবং মা শাহানা বেগমেরও বিচার চান। বিক্ষোভের ব্যানারে এ হত্যাকাণ্ডের আদেশদাতা হিসেবে তাদের নাম লেখা হয়। রাজনের স্বজনরা জানান, কিছু দিন আগে শাহানা বেগম মাদকসহ ধরা পড়ে তিন মাস জেল খাটেন। জেল থেকে বেরিয়ে তিনি ঘোষণা দিয়েছিলেন, রাজনই পুলিশে খবর দিয়ে তাকে ধরিয়ে দিয়েছিলেন। তাকে দেখে নেয়া হবে। এর কয়দিন পরই পাওনা টাকা চাওয়াকে কেন্দ্র করে খুন হন রাজন।
আরএমপির মুখপাত্র গোলাম রুহুল কুদ্দুস জানান, এ মামলায় দুইজন এজাহারভুক্ত আসামি। সবাইকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তদন্তে অন্য কারও সংশ্লিষ্টতা পাওয়া গেলে তাদেরও আইনের আওতায় আনা হবে। বিক্ষোভ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, তারা কার্যালয়ের সামনে মিনিট দশেক শ্লোগান দিয়ে চলে গেছেন। পুলিশের তদন্ত যেন ভালভাবে হয়, কেউ যেন আইনের ফাঁক দিয়ে পালাতে না পারেন সে জন্য এই বিক্ষোভ করা হয়েছিল। আমরা মামলাটি গুরুত্ব সহকারেই তদন্ত করছি।

Share Button


     এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ