৩রা অক্টোবর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ১৮ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ৬ই রবিউল আউয়াল, ১৪৪৪ হিজরি
www.motherlandnewsbd.com

তানোরে হিন্দু সম্প্রদায়ে সন্ত্রাসীর ভয়ে স্কুলে যেতে পারছেনা সপ্তম শ্রেণির ছাত্রী।

তানোর (রাজশাহী) প্রতিনিধি:

রাজশাহীর তানোরে ইভটিজিং ও এসিড সন্ত্রাসীর ভয়ে মেধাবী এক স্কুল ছাত্রী স্কুলে যাতায়াত বন্ধ করেছে বলে অভিযোগ উঠেছে। তানোরের কামারগাঁ ইউপির বাতাসপুর গ্রামে এই ঘটনা ঘটেছে। এদিকে এ খবর ছড়িয়ে পড়লে এলাকায় ব্যাপক চঞ্চল্যর সৃষ্টি হয়েছে, উঠেছে সমালোচনার ঝড়। স্থানীয় অভিভাবক মহল ও শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা এ ঘটনায় জড়িত অরুণ ভৌমিকের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করে জাতীয় মানবাধিকার কমিশন, রাজশাহী জেলা প্রশাসক (ডিসি), রাজশাহী পুলিশ সুপার (এসপি), উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ও তানোর থানার অফিসার ইনচার্জের (ওসি) জরুরী হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক পাড়িশো উচ্চ বিদ্যালয়ের এক শিক্ষক বলেন, যেই দেশের প্রধানমন্ত্রী ও বিরোধীদলীয় নেত্রী নারী সেই দেশে নারীর এমন অবমাননা অত্যন্ত নিন্দনীয় ও জখন্যতম অপরাধ এই ঘটনায় জড়িত অরুণ ভৌমিকের দৃস্টান্তমূলক শাস্তি দেখতে চাই। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে কয়েকজন গণমাধ্যম কর্মী অরুণের বাড়িতে যায় এ সময় সাংবাদিক পরিচয় পেয়েই অরুণ ভৌমিক প্রায় দ্বিগম্বর অবস্থায় পালিয়ে যায়।

স্থানীয়দের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, তানোরের কামারগাঁ ইউপির বাতাসপুর গ্রামের রাজনৈতিক পরিচয়ের প্রভাবশালী গয়ানাথ ভৌমিকের পুত্র অরুণ ভৌমিক দীর্ঘদিন ধরে প্রতিবেশী জনৈক ব্যক্তির স্ত্রীকে কুপ্রস্তাব দিয়ে আসছে। আবার তার কন্যা (১৩) ও পাড়িশো উচ্চ বিদ্যালয়ের সপ্তম শ্রেণীর মেধাবী শিক্ষার্থীকে কুৃপ্রস্তাব ও স্কুলে যাতায়াতের পথে নানা ভাবে উত্যক্ত করে আসছে। এছাড়াও তাকে ঢাকা বেড়াতে নিয়ে যাওয়ার প্রলোভন দেখিয়ে ব্যর্থ হয়ে এবার অরুণ বিয়ের প্রস্তাব দিয়েছে। সম্প্রতি জনৈক ব্যক্তি বাড়িতে না থাকার সুযোগে অরুণ তার বাড়িতে গিয়ে ওই মেধাবী শিক্ষার্থীর শ্লীলতাহানির চেস্টা করেও তার চিৎকারে ব্যর্ধ হয়ে অরুণ ওই শিক্ষার্থীকে বিষয়টি কাউকে না জানানোর জন্য তাকে শাসিয়ে ও ভয়ভীতি দেখিয়ে বলেন,তার কথার অবাধ্য হলে স্কুলে যাবার পথে তার মূখে এসিড মেরে খারাপ মেয়ে আঙ্খ্যা দিয়ে সমাজচ্যুত করে এলাকা ছাড়া করা হবে। এ ঘটনার পর থেকে অজানা আতঙ্ক নিয়ে মেধাবী ওই স্কুল ছাত্রী স্কুলে যাতায়াত বন্ধ করে দিয়েছে।

এ বিষয়ে ভিকটিম শিক্ষার্থীর বাবা বলেন, অনেক আগেই অরুণের বিরুদ্ধে তানোর থানায় জিডি করা হয়েছে, তবে এখানো সেই জিডির বিষয়ে পুলিশ কোনো পদক্ষেপ গ্রহণ করেনি।

Share Button


     এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ