৩০শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ১৫ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ৩রা রবিউল আউয়াল, ১৪৪৪ হিজরি
www.motherlandnewsbd.com

তানোরে তিন ব্যক্তির শাস্তির দাবিতে এলাকাবাসি বিক্ষুব্ধ 

 সোহানুল হক পারভেজ,তানোর (রাজশাহী): রাজশাহীর তানোরে তিন ব্যক্তির দাপটে অতিষ্ঠ এলাকাবাসী তাদের শাস্তির দাবিতে বিক্ষুব্ধ হয়ে উঠেছে। জানা গেছে, পাওনা টাকা চাওয়ার অপরাধে সন্ত্রাসী কায়দায় এক ব্যবসায়ীকে মারপিট করে গুরুত্বর জখম করা হয়েছে। স্থানীয়রা জানায়, হাজী কমল, কাজল ও সাজ্জাদ আলী দেশীয় অস্ত্রে সজ্জিদ হয়ে মেসার্স শাহ্ খুশী এন্টারপ্রাইজে হামলা করে মুগল সম্রাটের ওপর অতর্কিত হাসলা করে। চলতি বছরের ১১ জুন মঙ্গলবার তানোরের কলমা ইউপির দরগাডাঙ্গা হাটে এই ঘটনা ঘটেছে। তানোরের কলমা ইউপির শালবাড়ী গ্রামের আলতাব চৌধূরীর পুত্র কাজল চৌধূরী, হাজী কমল চৌধূরী ও তাদের ভাড়াটিয়া লাঠিয়াল চন্দনকৌঠা গ্রামের জলিল ফকিরের পুত্র সাজ্জাদ আলী মিলেমিশে ব্যবসায়ী মুগল সম্রাটকে মারপিট করেছে। এদিকে নিরহ ব্যবসায়ীকে মারপিটের খবর ঝড়িয়ে পড়লে পুরো হাটের ব্যবসায়ী ও গ্রামবাসী ঐক্যবদ্ধ হয়ে হাজী কমল চৌধূরীসহ তার সাঙ্গপাঙ্গদের ধাওয়া দিলে তারা দোকানের ভিতরে আশ্রয় নেয়। এ সময় দরগাডাঙ্গা হাটে শত শত মানুষ বিক্ষুব্ধ হয়ে কমল ও তার সহযোগীদের শাস্তির দাবিতে বিক্ষোভ করলে সেখানে চরম উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। ওদিকে খবর পেয়ে রিজার্ভ পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ ও তাদের উদ্ধার করে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক ব্যবসায়ী বলেন, হাজী কমল একটা টাউট ও দাদন ব্যবসায়ী এর আগে সিমেন্ট বাকি নিয়ে মুকুল মেম্বারের ৬ লাখ টাকা আতœসাৎ করেছে, এছাড়াও সে নগদ টাকায় সার বিক্রি করে না, বাঁকিতে প্রতি বস্তায় একশ” টাকা বেশী নেয় তার বিরুদ্ধে এ রকম অসংখ্য অভিযোগ রয়েছে। অন্যদিকে এ ঘটনার পর থেকে বিক্ষুব্ধ জনতার রোষাণলে পড়ার ভয়ে কমল-কাজল ও সাজ্জাদ আলী এলাকা ছেড়ে আতœগোপণ করেছে বলে একাধিক সূত্র নিশ্চিত করেছে।
জানা গেছে, তানোরের কলমা ইউপির পিপড়াকালনা গ্রামের আরজান আলী শাহ্র পুত্র মুগল সম্রাট দরগাডাঙ্গা হাটে ইলেক্ট্রনিক্স ( মেসার্স শাহ্ খুশী এন্টারপ্রাইজ) ব্যবসা করেন। তাদের দোকান থেকে বাজারের অপর ব্যবসায়ী (মেসার্স আলতাব হার্ডওয়ার) হাজী কমল চৌধূরী বাঁকিতে দুটি রঙ্গীন টেলিভিশন কিনে যার মূল্য প্রায় ২২ হাজার টাকা। কিšত্ত দীর্ঘদিন অতিবাহিত হলেও কমল বাঁকি টাকা না দিয়ে বিভিন্ন কৌশলে কালক্ষেপণ করতে খাকে। ফলে বাঁকি টাকা উত্তোলনের জন্য বাধ্য হয়ে মুগল আইনের আশ্রয় নেয় ও কমল চৌধূরীর বিরুদ্ধে অভিযোগ করেন। আর এই অপরাধে কমল-কাজল ও তাদের ভারাটিয়া সাজ্জাদ আলী দেশীয় অস্ত্রে সজ্জিদ হয়ে মেসার্স শাহ্ খুশী এন্টারপ্রাইজে হামলা করে মুগল সম্রাটের ওপর মধ্যযুগীয় নির্যাতন করে। এদিকে এ খবর ছড়িয়ে পড়লে দরগাডাঙ্গা হাটের সব ব্যবসায়ী ও গ্রামের মানুষ বিক্ষুব্ধ হয়ে তাদের ধাওয়া করলে তারা মেসার্স আলতাব হার্ডওয়াডে আশ্রয় নেয়। এ সময় শত শত বিক্ষুব্ধ মানুষ সেখানে অবস্থান নিয়ে কমল-কাজল ও সাজ্জাদের শাস্তির দাবিতে বিক্ষোভ প্রদর্শন করে এবং সেখানে চরম উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। ওদিকে খবর পেয়ে অতিরিক্ত পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ ও তাদের উদ্ধার করেন। এবিষয়ে জানতে চাইলে হাজী কমল চৌধূরী অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, যা হবার হয়েছে এসব নিয়ে খবর প্রকাশ না করায় ভাল। তিনি বলেন, বৃহ¯প্রতিবার বিষয়টি নিয়ে তানোর খানায় সাণিশ বৈঠক বসার কথা রয়েছে। এব্যাপারে মুগল সম্রাট বলেন, তার ওপর যে অন্যায় অত্যাচার করা হয়েছে তিনি সেটার নায্য বিচার চান।

প্রকাশিত: মাদারল্যান্ড ডেস্ক

Share Button


     এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ